মিলনের ব্যাকুলতায়
অশোক কুমার আচার্য্য

বসন্তের আগমনে যে ফুল গুলো ফুটেছিল
শিবচতুর্দশীর পর তাদের পাঁপড়িগুলো ঝরছে,
কৃষ্ণচূড়া রাধাচূড়া পলাশ ও শিমূলের পাঁপড়ি-
গাছের তলায় রঙিন আলপনা এঁকেছে।
প্রতিদিন একটা একটা করে কুড়িয়ে নিয়েছি
বসন্ত বিদায়ে প্রিয়তমাকে রাঙাবো বলে।

পলাশের পাঁপড়ি গুলো শুকিয়ে গিয়েছে
বিবর্ণতা গ্রাস করেছে ওদের, দিন বদলে
কৃষ্ণচূড়া ও রাধাচূড়ার পাঁপড়িগুলো-
কান্নায় জর্জরিত হয়ে কুঁকড়ে গিয়েছে
মিলনের ব্যাকুলতায় ; সবাই অপেক্ষারত।

চারিদিকে সাজো সাজো রব উঠেছে
দোকানে দোকানে আবিরের খোলা বস্তা,
পিচকারি আর রঙের কৌটো সাজানো।
আমি তামার পাত্রে সাজিয়ে রেখেছি যতনে
চিরবসন্তের বাহার আমার প্রিয়তমার জন্য
তনুমন রঙে রঙে রাঙিয়ে দেব বলে।

Advertisement :

হামিম হোসেন মণ্ডল সম্পাদিত কাব্যগ্রন্থ “নবরত্ন’ নিচের Amazon লিংকের ছবিতে গিয়েও কেনার সুবিধা রয়েছে

Spread the Kabyapot

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *