ফুলের দোলায় দোলে শ‍্যাম-রাই✍️নীতা কবি✍️ফুল দিয়ে সাজা সোনার দোলায় দোলে দেখ বাঁকাশ‍্যামরাই আমাদের গরবিনী বড়ো জপে খালি শ‍্যাম-নাম।
শ‍্যামল-কিশোর ঝুলনিয়া ঝুলে নব তমালিকা সাথেনাচে শ‍্যামসুন্দর, নাচে বিহগ-বিহগী, ময়ূর-ময়ূরী তাতে।
বৃক্ষ-পল্লব আনন্দে নাচে যমুনার জল সাথেরাধা আমাদের বিধুমুখী, সে যে রাঙ্গা হয় লজ্জাতে।
শ‍্যামের বাঁশীটি বাজে মধুসুরে, মন যে লাগে না কাজেকূলবধু আমি, গোপের দূহিতা এমন কাজ কি সাজে?
ঘরে আছে যে গো জটিলা কূটিলা, তুমি কি জানো না বঁধু?তাদের এড়ায়ে আসিব কিরূপে বাজে তব বাঁশী শুধু।
ওগো শ‍্যাম, তব পায়ে পড়ি বঁধু আজ নয়, কাল যাবোকলঙ্কিনী রাধা, এ নাম লয়ে কি সংসারে  ঠাঁই পাবো?
শ‍্যামের লাগিয়া সকলি ত‍্যাজিবে তবে তো শ‍্যামেরে পাবেরাই-বিনোদিনী, শ‍্যামের গোপিনী, জগতে সে নামে রবে।
শ‍্যামে না হেরিয়া রাধা মন পোড়ে, হৃদয়ে দহন জ্বালাও লো, সখি, আজ কানু নাহি আসে, নিঠুর দরদী কালা।
শাশুড়ি ননদী কলঙ্কের জ্বালায় হলাম কলঙ্কিনীভক্তের নাকি ভগবান তিনি, আমি হলাম পাগলিনী।
কদম্বের তলে বাজায়ে বাঁশরী, ডাকে শুধু রাধা বলেআয়ান-ঘরণী ,আমি গোপবালা, কেমনে যাই গো জলে?
ও লো সখি, ওরে বলে দে লো সখি, বেলা গেলো, সাঁঝ হলোআজ এ মিলনে বাধা পড়ে গেছে, ক্ষণেক আমারে ভোলো।
রজনী পোহালো, সুপ্রভাত এলো, রাধা গেলো যমুনায়রাধা-গোবিন্দের যুগল-মিলনে শুক-সারী গান গায়।

Spread the Kabyapot

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *