Author: admin

গভীর ভালোবাসা- রূপা দত্ত চৌধুরী

গভীর ভালোবাসা কলমে রূপা দত্ত চৌধুরী রুমা বৌদি আজ রাত্রে মারা গেল। গত তিনদিন ধরে অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করে আজ রাতে পরাজয় বরণ করে নিতে বাধ্য হলো রামাপদ ঘোষের ছোট…

কুরুক্ষেত্রে আঠারো দিন – কবি কৃষ্ণপদ ঘোষ

ধারাবাহিক পৌরাণিক কাব্য কবি কৃষ্ণপদ ঘোষ কুরুক্ষেত্রে আঠারো দিন ৩৭তম উপস্থাপন ২০। কর্ণ বধ অর্জুন করেন তীব্র বাণ বরিষণ। আঘাতে কর্ণ-কিরীট করেন ছেদন।। ছেদিত হলো কর্ণের কনক কুণ্ডল। দ্বিখণ্ডিত শরাঘাতে…

খেয়ালী -বিশ্বজিত মুখার্জ্জী

খেয়ালী কলমে-বিশ্বজিত মুখার্জ্জী পথিক তুমি জীবন পথে সামলে টেনো দাঁড়, ঝালিয়ে নিয়ো জীবনপাঠ খেয়ালী এ সংসার। দিবারাত্রি সং-ই সার ঘোরা ক্রমান্বয়ে, বর্তমানে জীবন তরী আপসে আছে ভয়ে। জীবন চলে টেনেহিঁচড়ে…

এগিয়ে চলেছি -সুমন চক্রবর্তী

এগিয়ে চলছি সুমন চক্রবর্তী এগিয়ে চলছি আমি, সভ্যতার মশাল জ্বেলে এগিয়ে চলছি, প্রানপণে চেষ্টা করছি,আগুন টা জ্বালিয়ে রাখতে। কিন্তু পারছি কই। বারবার দমকা হাওয়া এসে নিভিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। দৌড়তে…

উলঙ্গ – বিধানচন্দ্র হালদার

উলঙ্গ বিধানচন্দ্র হালদার চন্দন বনে চন্দন উবে যাচ্ছে আমরা না দেখার ভান করি উলঙ্গ বুকে এগিয়ে চলেছি ইঁদুর গর্তের ফাঁকে ফাঁকে। চোখে চোখে লোডশেডিং আমরা না দেখার ভান করি চাঁদের…

ভৌতিক ছোটগল্প : অদ্ভুতুড়ে – কে দেব দাস

শিরোনাম:ছোট গল্প ( ভৌতিক ) 🔸#অদ্ভুতুড়ে। 🔸✍️ কে দেব দাস। ভূতের অস্তিত্ব নিয়ে নানা মুনির নানা মত। ভূতের অস্তিত্বের প্রমাণ আজ পর্য্যন্ত ও আবিষ্কৃত হয়নি প্রাচ্য কিংবা প্রাশ্চত্যের দেশগুলোতেও। কিন্তু…

লাভ জেহাদ বর্তমান সমাজে কখনোই সমর্থন যোগ্য নয় – বটু কৃষ্ণ হালদার

লাভ জেহাদ বর্তমান সমাজে কখনোই সমর্থন যোগ্য নয় বটু কৃষ্ণ হালদার ভালোবাসা হল পৃথিবীর সব থেকে মধুর ও পবিত্রতম সম্পর্ক। যে সম্পর্কের কোন তুলনা হয় না।তবে অনেকেই বলেন ভালোবাসার কোনো…

কবিতা: টেমসের পারে বসে – শোভা মণ্ডল

“টেমসের পারে বসে ” শোভা মন্ডল। লন্ডন, ৪ঠা জুন ২০২২ ভেবেছিলাম— টেমসের পারে বসে লিখব অনেক কিছু , কিন্তু দেশ— আমার দেশ ছাড়ে না আমার পিছু । তবুও লিখতে হবে…

ছড়া: পারিপার্শ্বিক – প্রণব কুমার বসু

ছড়া: পারিপার্শ্বিক –প্রণব কুমার বসু ************** ল্যাংটা ছেলে ব‌ইটা ফেলে লাফ দিয়েছে গঙ্গাতে রান্না ছেড়ে ফ্যানটা গেলে দৌড়ে গেছে সামলাতে – ভাসছে পাতা নোংরা যাতা পালায় পাখি চিৎকারে হাতটা ছুঁড়ে…

You missed

পুনরাবৃত্তি ©অঞ্জলি দে নন্দী, মম আমার বয়স তখন অধিক নহে। বিদ্যালয়ের নিম্ন শ্রেণীর ছাত্রী। বঙ্গ ভাষায় পাঠ্যরূপে সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায় মহাশয়ের কপালকুণ্ডলার কিয়দংশ পাঠ করান হইত। আমি শ্রেণীর খুব মেধাবিনী পঠিয়ত্রী ছিলুম। আমি প্রথম স্থান অধিকার করিয়া প্রত্যেক বৎসর ঊর্ধ্ব শ্রেণীতে গমন করিতুম। ঐ পাঠ্যের এক পত্রে বঙ্কিমচন্দ্র মহাশয় কতৃক লিখিত হইয়াছিল, ” তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম না হইব কেন? ” পাঠ্যে ওই অংশটির নাম ছিল, ‘সাগর সঙ্গমে নবকুমার’। যাহা হউক- আমার চিত্তে এই বাক্যটি গভীরভাবে রেখাপাত করিয়াছিল। আমার সহিত উক্ত সময় নবকুমার বাবুর সহিত যেইরূপ ঘটিয়াছিল ঐরূপ কিছু ঘটিলে আমি তাহাকে ঠিক ঐরূপভাবেই গ্রহণ করিতুম। কিন্তু এই সময়ে আমি উহাকে পরিবর্তীত করিয়া লইয়াছি। এইরূপে – তুমি অতিশয় অধম সেইহেতু বলপূর্বক আমাকেও ঠিক তোমারই স্বরূপ অতি অধমে রূপান্তরিত করিতে চাহিতেছ। আমি অতি অধম না হইলে তুমি আমাকে কৌশলে এই ইহলোক হইতে পরলোকে পাঠাইয়া দিবে। সেইহেতু আমি মৃত্যুলোকবাসীনি না হইবার কারণ বসত তোমাকে সন্তুষ্ট করিবার হেতু মিথ্যা অভিনয় করিয়া তোমাকে দৃশ্য করাইয়া চলিতেছি যে আমিও তোমার স্বরূপই অতি অধমে পরিণত হইয়াছি। বাস্তবিকই তোমার প্রচেষ্টা সার্থক হইয়াছে। আমি আর পূর্বের ন্যায় অতি উত্তম নহি। কিন্তু তুমি কদাপি বুঝিতে পার নাই যে আমি প্রাণে বাঁচিয়া থাকিবার নিমিত্ত তোমার সম্মুখে এইরূপ মিথ্যা, নকল অভিনয় করিতেছি। আদৌই আমি অধম হই নাই। পূর্বে যেইরূপ অতি উত্তম ছিলুম অদ্যাপি ঐরূপই বিদ্যমান রহিয়াছি। কেবলমাত্র একটি নকল আবরণ ধারণ করিয়াছি। নতুবা অকালে তোমার হস্তে আমার প্রাণ বিসর্জিতা হইত। তদপেক্ষা ইহা অধিকতর সঠিক পথ বলিয়া আমা কতৃক ইহা বিবেচিতা।