দারুচিনি:- একটি Antioxidant যুক্ত মশলা

Antioxidants এবং আমাদের দেশের সীমান্তে প্রহরারত সেনা জওয়ান উভয়ই সমান কারণ এদের দুজনেরই কাজ সমান মানুষকে রক্ষা করা। যেমন আমাদের দেশের সীমান্তে প্রহরারত সেনা জওয়ানরা বহিরাগত শত্রুদের হাত থেকে আমাদের রক্ষা করে ঠিক তেমন ভাবেই antioxidants সমুহ আমাদের শরীরকে ক্ষতিকর মুক্তমুলকের প্রভাব থেকে রক্ষা করে আমাদের শরীরকে সুস্থ এবং স্বাভাবিক রাখতে অগ্ৰনী ভুমিকা পালন করে।

আমরা সবাই জানি অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন এই দুটি গ্যাস আমাদের জন্য অতি প্রয়োজনীয় কারণ আমাদের শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয় জৈবঅনু বা Bio molecules সমুহের প্রাথমিক গঠনে এই অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন থাকে। এছাড়াও অক্সিজেন আমাদের জীবনধারণের জন্য অতি প্রয়োজনীয় একটি উপাদান। কিন্তু আমাদের বাহ্যিক বা অভ্যন্তরীন পরিবেশের কিছু হঠাৎ পরিবর্তনের ফলে আমাদের শরীরে এই অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন এর ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে কারণ এই সময় অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন থেকে অতিসক্রিয় এবং highly reactive মুলক উৎপন্ন হয় এদেরকে যথাক্রমে Reactive Oxygen Species [ROS] এবং Reactive Nitrogen Species [RNS] বলা হয়। এই দুটো compounds কে মুক্তমুলক বলা হয় কারন এইসব compounds এর শৃঙ্খল এ এক বা একাধিক unpaired electrons থাকে। এইসব unpaired electrons এর জন্য এরা Highly reactive হয়ে থাকে। কয়েকটি মুক্তমুলক হল Hydroxyl radicals [OH], Super oxide radicals [O2], Hydrogen Peroxide [H2O2], Nitric Oxide [NO] প্রভৃতি। এইসব মুক্তমুলক সমুহ আমাদের কোষস্থ বিভিন্ন জৈবঅনু যেমন কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফ্যাট, DNA কে নষ্ট করে দেয় যার ফলে আমাদের cellular damage হয়।

মুক্তমুলক মুলত দুটো প্রধান পথে আমাদের শরীরে উৎপন্ন হয় বা আমাদের শরীরে প্রবেশ করে। যেমন-

১. কোষস্থ বিপাকীয় প্রক্রিয়ার প্রভাব [Cellular Metabolism]

২. বাহ্যিক পরিবেশের প্রভাব [Environmental Effects]

Reactive Oxygen Species বা অক্সিজেনের মুক্তমুলক সমুহ

আমরা আগেই বলেছি প্রতিটি জীবের জীবনধারণের জন্য অক্সিজেন এর প্রয়োজন হয় কারণ অক্সিজেন আমাদের শ্বাস প্রশ্বাসের জন্যে অতি প্রয়োজনীয় একটি গ্যাস। কিন্তু কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই অক্সিজেনের আধিক্য আমাদের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কারন অতিরিক্ত অক্সিজেন আমাদের দেহের কোষ, কলা সমুহকে Damage করে। বর্তমান সময়ে অক্সিজেনের মুক্তমুলক বা Free Radicals সমুহ আমাদের দেহের কোষ, কলা সমুহকে Damage করে। অক্সিজেনের এই মুক্তমুলক সমুহকে বলা হয় Reactive Oxygen Species [ROS]।

উদাহরণ স্বরূপ আমরা বলতে পারি Superoxide Anion Radicals [O2] যেটির অতিরিক্ত উৎপাদন আমাদের শরীরে হয় বিভিন্ন Chronic inflammatory disease যেমন আর্থারাইটিস এর সময়, বিভিন্ন Drugs গ্ৰহনের পর, শরীরের অভ্যন্তরে যখন কোনো বিষক্রিয়া হয় তখন, বিভিন্ন Stressful situation এর সময় এবং Tissue injury এর সময়। এছাড়াও আমরা নাম করতে পারি Hydroxyl radicals [HO] এর যেটি Superoxide এর মতোই একটি ক্ষতিকর মুক্তমুলক এবং এই মুক্তমুলকটি উৎপন্ন হয় Hydrogen peroxide [H2O2] এবং Superoxide Radical [O2] এর বিক্রিয়ার মাধ্যমে। এই বিক্রিয়াটিকে বলা হয় Haber-Weiss Reaction।

Reactive Nitrogen Species বা নাইট্রজেনের মুক্তমুলক সমুহ

আমরা সবাই জানি অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন এই দুটি গ্যাস আমাদের জন্য অতি প্রয়োজনীয় কারণ আমাদের শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয় জৈবঅনু বা Bio molecules সমুহের প্রাথমিক গঠনে এই অক্সিজেন এবং নাইট্রোজেন থাকে। কিন্তু কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই নাইট্রোজেনের আধিক্য আমাদের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কারন অতিরিক্ত নাইট্রোজেন আমাদের দেহের কোষ, কলা সমুহকে Damage করে। বর্তমান সময়ে নাইট্রোজেনের মুক্তমুলক বা Free Radicals সমুহ আমাদের দেহের কোষ, কলা সমুহকে Damage করে। নাইট্রোজেনের এই মুক্তমুলক সমুহকে বলা হয় Reactive Nitrogen Species [RNS]।

উদাহরণ স্বরূপ আমরা বলতে পারি Nitric Oxide [NO] এর কথা। এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ Reactive Nitrogen Species এবং এটিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ Pollutant বা দূষনসৃষ্টিকারী উপাদান রূপে গন্য করা হয়। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে এই Compound টি আমাদের মসৃন পেশি বা Smooth Muscle গুলোকে শিথিল বা relax করে দেয় এবং গবেষনায় এটিও দেখা গেছে যে এই Compound টি বিভিন্ন রকমের রোগসৃষ্টি এবং নিরাময়ে অংশগ্রহণ করে। এই NO বা Nitric Oxide উৎপন্ন হয় L-Arginine থেকে Nitric Oxide Synthase [NOS] উৎসেচকের উপস্থিতিতে।

এই Nitric Oxide [NO] হল একটি “দ্বিমুখী তলোয়ার”কারন এর রোগ নিরাময়ে এবং রোগ বিস্তারে ভুমিকা আছে। এই Nitric Oxide এর ঘাটতি এবং আধিক্যের ফলে আমাদের দেহে বিভিন্ন Pathophysiological conditions arise হয় যেমন- Stroke, Ischemia, Gastrointestinal disorders, Achalasia, Hirschprung”s Disease, Congenital Hypertrophic Pyloric Stenosis প্রভৃতি।

Oxidative Stress

Oxidative Stress হল আমাদের শরীরের এমন একটি Pathophysiological condition যেখানে মুক্তমুলক বা Free Radicals এবং Antioxidants এর অনুপাতে হেরফের ঘটে এবং যার ফলশ্রুতিতে আমাদের শরীরের কোষ সমুহ নষ্ট হয়ে যায় এবং যার ফলে আমাদের শরীর রোগগ্ৰস্ত হয়ে পড়ে। এই Oxidative Stress মাঝারি থেকে তীব্রতর হতে পারে। এই Oxidative Stress এর ফলে আমাদের শরীরে ক্যন্সার, অস্টিওআর্থারাইটিস, হৃদরোগ, Lupus Erythematous, Diabetes, Cataract, Male Infertility প্রভৃতি জটিল রোগের সৃষ্টি হয়। এছাড়াও Oxidative stress এর ফলে Aging এর লক্ষন সমুহ প্রকাশ পায়।

দারুচিনি

Cinnamon বা দারুচিনি হল একপ্রকার মশলা বা Spice যেটি পাওয়া যায় Cinnamomum গণের অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন চিরসবুজ গাছের বাকল বা ছাল থেকে। এই cinnamon কে বিভিন্ন রান্নায় স্বাদ ও সুগন্ধ বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করা হয়। অর্থাৎ Cinnamon হল একটি Flavouring agent। কিন্তু আমাদের মনে একটি প্রশ্ন জাগে যে এই দারুচিনি বা Cinnamon কী শুধু একটা Flavouring Agent রূপেই ব্যবহৃত হয়? এর কী অন্য কোনো ব্যবহার নেই? অবশ্যই আছে। এটি আমাদের Colon এর গঠনকে এবং Colon এর স্বাভাবিক ক্রিয়াকে বজায় রাখার মধ্যে দিয়ে Colon cancer প্রতিরোধ করে, দারুচিনি বা Cinnamon এর Extract বা নির্যাসকে Chewing gum এ add করে সেই Chewing gum যদি আমরা গ্ৰহন করি তাহলে আমাদের মুখের বাজে গন্ধ দুর হয়ে যাবে, এছাড়াও Cinnamon একটি রক্ততঞ্চনকারী পদার্থ রূপে কাজ করে রক্তের তঞ্চন বা Coagulation এ সাহায্য করে, এবাদেও Cinnamon আমাদের জরায়ু বা Uterus এ রক্তের প্রবাহ বা Circulation বাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়াও Cinnamon এ উপস্থিত বিভিন্ন Bio-active components গুলোর উপস্থিতির জন্য Cinnamon এর মধ্যে Antioxidant, Antimicrobial, Anti diabetic, Anti Inflammatory, nematicidal, mosquito larvicidal, insecticida, antimycotic, and anticancer properties থাকে। এছাড়াও Cinnamon বা দারুচিনির ব্যবহার মাজন বা Toothpaste এ করা হয় কারণ এটি দাঁত ব্যথা, মাড়ির সমস্যা, এবং মুখের ভিতরের জীবানু নাশ এবং মুখের বাজে গন্ধ দূর করতে সহায়তা করে।

Cinnamon এর প্রজাতি সমুহ

  • Cinnamomum cassia(cassia or Chinese cinnamon, the most common commercial type in the USA)
  • C. burmannii(Korintje, Padang cassia, or Indonesian cinnamon)
  • C. loureiroi(Saigon cinnamon, Vietnamese cassia, or Vietnamese cinnamon)
  • C. verum(Sri Lanka cinnamon, Ceylon cinnamon or Cinnamomum zeylanicum)
  • C. citriodorum(Malabar cinnamon)

Cinnamon এ উপস্থিত Chemical Constituents সমুহ

দারুচিনি বা Cinnamon এ কিছু resinous compounds থাকে সেগুলি হল- cinnamaldehyde, cinnamate, cinnamic acid, এবং কিছু essential oils যেমন- trans-cinnamaldehyde, cinnamyl acetate, eugenol, L-borneol, caryophyllene oxide, b-caryophyllene, L-bornyl acetate, E-nerolidol, 𝛼-cubebene,𝛼-terpineol, terpinolene, এবং 𝛼-thujene।

Table 1: Chemical Constituents Of different parts of Cinnamon [Vangalapati et al., 2012]

Part of the plantCompound
LeavesCinnamaldehyde: 1.00 to 5.00%Eugenol: 70.00 to 95.00%
BarkCinnamaldehyde: 65.00 to 80.00%Eugenol: 5.00 to 10.00%
Root barkCamphor: 60.00%
Fruittrans-Cinnamyl acetate(42.00 to 54.00%) and Caryophyllene(9.00 to 14.00%)
C. zeylanicum budsTerpene hydrocarbons: 78.00%alpha-Bergamotene: 27.38%alpha-Copaene: 23.05%Oxygenated terpenoids: 9.00%
C. zeylanicum flowers(E)-Cinnamyl acetate: 41.98%trans-alpha-Bergamotene: 7.97%Caryophyllene oxide: 7.20%

দারুচিনির Antioxidant ক্রিয়া সমুহ

Antioxidants হল এমন কতকগুলি compounds যারা আমাদের দেহে মুক্তমুলকের থেকে কম ঘনত্বে উপস্থিত থেকে মুক্তমুলকের ক্রিয়াকে অবদমিত করে বা পুরোপুরি বন্ধ করে দেয় যার ফলে আমাদের দেহ সুস্থ ও স্বাভাবিক থাকে। Antioxidants কে বলা হয় scavengers of free radicals অর্থাৎ antioxidants আমাদের শরীরে প্রবিষ্ট মুক্তমুলক সমুহকে আমাদের শরীর থেকে ঝাঁড়ু দিয়ে বের করে দেয়। Antioxidants সমুহ আমাদের বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। 

  • বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে দারুচিনির বিভিন্ন ধরনের নির্যাস যেমন- ইথারীয়, জলীয়, এবং মিথানলীয় নির্যাস সবথেকে বেশি মাত্রায় Antioxidant property যুক্ত। [Mancini-Filho et al]
  • ইঁদুরের উপর গবেষণায় দেখা গেছে C. verum(10%) এর বাকলের থেকে উৎপন্ন গুঁড়ো 90 দিন ধরে ইঁদুরকে প্রদান করার ফলে ইঁদুরের শরীরে Cardiac এবং Hepatic Antioxidant enzymes এর ক্রিয়া এবং Glutathione এর ক্রিয়া বৃদ্ধি পেয়েছে। [J. N. Dhuley, Anti-oxidant effects of cinnamon (Cinnamomum verum) bark and greater cardamon (Amomum subulatum) seeds in rats fed high fat diet,Indian Journal of Experimental Biology, vol. 37, no. 3, pp. 238–242, 1999.]
  • গবেষণায় দেখা গেছে দারুচিনির জলীয় এবং অ্যলকোহলীয় নির্যাস [1:1] আমাদের শরীরে Fatty acids এর oxidation এবং Lipid Peroxidation এর মত ক্ষতিকর প্রক্রিয়াকে অবদমিত করে। [S. Shobana and K. Akhilender Naidu, Antioxidant activity of selected Indian spices,Prostaglandins Leukotrienes and Essential Fatty Acids, vol. 62, no. 2, pp. 107–110, 2000.]
  • দারুচিনির থেকে প্রাপ্ত বিভিন্ন Flavonoids সমুহ আমাদের শরীরের বিভিন্ন ধরনের কোষসমুহের মধ্যে থেকে মুক্তমুলক বা Free radicals সমূহকে দুরীভূত করে। একটি গবেষণায় দেখা গেছে দারুচিনির মধ্যে উপস্থিত Cinnamaldehyde এবং অন্যান্য Bio active components সমুহ আমাদের শরীরের কোষসমুহের মধ্যে Nitric Oxide এর উৎপাদন এবং Inducible Nitric Oxide [iNOS] এর expression কে অবদমিত করে। Nitric oxide আমাদের শরীরে বিভিন্ন রকমের রোগব্যাধির সৃষ্টির জন্য দায়ী। [H.-S. Lee, B.-S. Kim, and M.-K. Kim, Suppression effect of Cinnamomum cassia bark-derived component on nitric oxide synthase,Journal of Agricultural and Food Chemistry, vol. 50, no. 26, pp. 7700–7703, 2002.]।
  • দারুচিনির থেকে প্রাপ্ত কিছু Essential oils এবং কিছু Polyphenolic compounds সমুহ যেমন- (E)-cinnamaldehyde, eugenol, এবং linalool আমাদের শরীরের কোষসমুহের কোষপর্দায় উপস্থিত Lipid layers কে Lipid Peroxidation এর damage এর হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।
  • এছাড়াও দারুচিনির থেকে প্রাপ্ত [ C. zeylanicum] কিছু Volatile oils সমুহ Antioxidants রূপে ক্রিয়া করতে সক্ষম।
  • C. malabatrum এর পাতার বিভিন্ন ধরনের নির্যাসের উপর [n-hexane, alcoholic, এবং aqueous extracts] একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে C. malabatrum এর পাতার নির্যাসে বিভিন্ন ধরনের Polyphenolic compounds উপস্থিত থাকে এবং এরা আমাদের শরীরের মধ্যে উপস্থিত বিভিন্ন ধরনের কোষসমুহকে বিভিন্ন ধরনের মুক্তমুলক এবং তাদের দ্বারা সৃষ্ট বিভিন্ন ক্ষতিকর প্রভাবের হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।

এভাবেই দারুচিনির বিভিন্ন প্রজাতির মধ্যে উপস্থিত বিভিন্ন ধরনের Bio active Polyphenolic compounds সমুহ Antioxidant রূপে ক্রিয়া করে এবং আমাদের শরীরের বিভিন্ন কোষসমুহকে মুক্তমুলক বা Free Radicals এর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা করে। যারফলে আমাদের শরীর বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধির হাত থেকে রক্ষা পায়।

আমরা যদি আমাদের প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় Cinnamon কে রাখতে পারি তাহলে আমরা আমাদের শরীরের ভিতরের কোষসমুহকে মুক্তমুলকের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে কিছুটা হলেও দূরে রাখতে পারব। আমরা বিভিন্ন ভাবে এই Cinnamon গ্ৰহণ করতে পারি যেমন আমরা cinnamon কে গুড়ো করে সেটাকে চায়ের মধ্যে দিয়ে গ্ৰহণ করতে পারি, আবার আমরা রান্নায় বিভিন্ন মশলার সাথে এই Cinnamon কে গুড়ো করে মিশিয়ে দিতে পারি , এছাড়াও আমরা একটা ছোট্ট Cinnamon কাঁচা অবস্থায় খেতে পারি যেটা আমরা চিবিয়ে খেতে পারি। এছাড়া এখন বাজারে প্রচুর Cinnamon এর Supplements আছে সেগুলি আমরা ব্যবহার করতে পারি। Supplements ব্যাবহার করার আগে চিকিৎসক বা পথ্যবিশারদদের সাথে আলোচনা করে নিতে হবে কারন তারাই আমাদের বলে দিতে পারবেন যে কতটা Supplement আমাদের শরীরের পক্ষে ভালো কেননা Supplements থেকে অনেক সময় Side effects হয়ে যায়। আমরা যদি আপনাদের চিকিৎসক বা পথ্যবিশারদদের কথা মেনে চলি তাহলে আমরা সুস্থ থাকতে পারব।

লেখক পরিচিতি :

  • নাম-শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়
  • ঠিকানা:- হালিশহর
  • জন্মসাল:- জানুয়ারি ২০০১
  • বয়স:- ২১ বছর

আমার নাম শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়। আমি উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার হালিশহর নিবাসী। আমার জন্ম ২০০১ সালে ২৫ শে জানুয়ারি। ছোটো থেকেই আমার বিজ্ঞান বিষয়ে পড়া ও লেখার প্রতি ছিল গভীর ভালোবাসা। হালিশহর রামপ্রসাদ বিদ্যাপীঠে উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে বিজ্ঞান শাখায় পড়াশোনা করেছিলাম। আমার প্রিয় বিষয় হল পুষ্টিবিজ্ঞান। তাই পরবর্তীতে কাঁচরাপাড়া কলেজ থেকে পুষ্টিবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক উত্তীর্ণ হয়ে বর্তমানে কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ে উক্ত বিষয়ে স্নাতকোত্তর স্তরে ভর্তি হয়েছি। পড়াশোনার পাশাপাশি বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও অনলাইন ম্যাগাজ়িনে নিয়মিত লেখালেখি করার কাজে নিযুক্ত হয়েছি। এছাড়াও আমি বিভিন্ন গল্পের বই পড়ি, বিভিন্ন Audio books শুনি এছাড়াও বিভিন্ন school এর বিভিন্ন শ্রেণীর ছাত্রদের Biology পড়াতে ভালোবাসি।

75560cookie-checkদারুচিনি :- একটি Antioxidant যুক্ত মশলা – লিখেছেন শুভেন্দু চট্টোপাধ্যায়
Spread the Kabyapot

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *