ফেসবুকীয় ফেস্টুন
(গদ্য কবিতা)
***************************

ব্যক্তিগত প্রকাশ পেলো…
“আমি সুরঞ্জনাকে ব্লক করলাম ;”ছড়ালো কৌতূহল….
কেউ বললো  কীট, কেউ কার্য কারণ  নিরিক্ষণ,
কা কা রব  ওঠে , জটলা  জমেছে  বেশ…
কতটা  টানলে নিচে  নামানো যায়… কতটা  খাদে  ফেলা যায় তার ই কাটা খাল |
কাদা ছেটানো  ব্লক বাটনের অস্তিত্ব… সামাজিক জিহ্বায় শাশ্বত  আয়োজন ফাঁসি, চিতা  সাজানো শ্মশান|
যে চোখে  মোহ ছিল  এক সময়ে সে যে বড়ো  অসুস্থ ;
তাই দশ ভাতারী  শিলমোহরে  রাখা… গভীর  গর্ত |

অসম্মানে কয়েকটা ঘুমের  ওষুধ  খেলো  সেদিন;
না মৃত্যু হয়নি, স্বামী বড়ো  ডাক্তার নিয়ে এসে বাঁচিয়ে  ফেললো তাকে
সুরঞ্জনা গুমরে ওঠে, বুকের পাঁজরে  দিনগত পাপক্ষয়ের
আই সি ইউ র আলো দেখে;
সবুজ  আলো কবে  হবে  লাল… চাই  মুক্তি |
সুস্থ থাকো  বিচার সভা, মোড়ল, ফেসবুকীয় আদালত!

মৃত্যু দেখেছে  সমাজ ; তথ্য প্রযুক্তির বিষ  ছড়িয়েছে  কুমন্তব্যে, কর্কট  রোগে,
হিড় হিড় করে  টেনে এনে পথে  ঘাটে  বিশ্লেষণে
ফেলে ধস্তাধস্তি… পরের  ঘরে  উঁকি,
বিপরীত ধর্মী হলেই   বিচারবিভাগীয় বিশেষণ ;
মন  খোলা  ব্যারিস্টার! আইন ফেসবুকীয়
কখনো  নোংরা  মহিলা  আখ্যায়িত, জানে জনগণ |

প্লাস্টিক দূষণ —সুস্থ হও  পৃথিবী |
আমরা নাই বা হলাম  সামাজিক আদালত,
নাই বা দিলাম ফেসবুকে ফেস্টুন
ব্যক্তিগত থাক  ব্যক্তির অন্তর্গত, নয়  খোলা  প্রীতিভোজন |
সোশ্যাল মিডিয়া নাই বা হলো  প্লাটফর্ম!

Spread the Kabyapot

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *