• Fri. Aug 19th, 2022

গাছে-গাছে সাদা চুন হীরাঝিল – ঋদেনদিক মিত্রো

ByKabyapot

Jan 9, 2022

কবিতা : গাছে-গাছে সাদা চুন হীরাঝিল
  ——————————————–
  –ঋদেনদিক মিত্রো

❤[ কবিতাটা পড়ার আগে বলি, পাঠক পাঠিকাদের অনুরোধ আপনারা ? ” হীরাঝিল বাঁচাও ” ? ফেইসবুক পেজ দেখুন, এটা আমার পেজ নয়, দেশ বিশ্ব ব্যাপী আন্দোলনকারীদের কার্যপ্রণালীর পেজ, কী করে নবাব সিরাজের প্রাসাদের ধ্বংসাবশেষ মুর্শিদাবাদের ভাগীরথী নদীর পশ্চিমে হীরাঝিল এলাকা সংরক্ষণ হচ্ছে হীরাঝিল বাঁচাও কমিটির আন্দোলনের পরে, কী করে এই আন্দোলন জেগে উঠলো, কী করে ইতিহাস সচেতন সৎ সাহসী শিশু ও নর-নারীরা একত্রে নেমেছেন এই বিরাট আন্দোলনে, কী করে সরকারি কতৃপক্ষ এই আন্দোলনকারীদের প্রতি যত্নশীল হচ্ছেন, সংবাদ মাধ্যমগুলি কী করে এগিয়ে আসছেন, এবং সিরাজ-কেন্দ্রিক সমগ্র ইতিহাসের স্থানগুলির প্রতি কী করে যত্ন নেবার প্রচেষ্টা চলছে, বাংলাদেশ ও আমেরিকা থেকেও নবাবের বংশধরগন কী করে এই আন্দোলনকে প্লাবিত করছেন সমর্থন দিয়ে, — এগুলো একটু জেনে নিলে আমার লেখা নবাব সিরাজ সিরিজের কবিতাগুলি অনুভব করতে তৃপ্তি বোধ করবেন! কারণ তখনি পূর্ণতা পাবেন এই বিষয়ে!

লেবু পাতার গন্ধ হাওয়ায় ওড়ে, সেটা ভালো লাগে, কিন্তু সেটা লেবু নয়, লেবুর রস নয়, তেমনি আমার কবিতাগুলিতে কাব্য অনুভূতি পাবেন কিন্তু চিন্তার উদ্দেশ্যের পূর্ণতা পাবেন এঁদের আন্দোলনের বিষয়ে জানলে ও সেই বিষয়ে চর্চা করলে! এ এক বিরাট জগৎ! যাক, এখন কবিতাটি পড়ে ওঁদের ফেইসবুকে ঢুকতে পারেন — হীরাঝিল বাঁচাও!] ❤

                             ?‍??‍??‍?

গাছে-গাছে চুনকাম হলো হীরাঝিল,
এইবার রোদ এসে হাসে ঝিলমিল,
জঙ্গল, চলাপথ আর খানা খন্দ,
সব সাফ করে দিতে গেলো দুর্গন্ধ, 
              হলো ছিমছাম,
চকচকে রোদ এসে
    আয়াসে এলিয়ে পড়ে
           বলে, ” আহা কী আরাম!
এতদিন মানুষেরা ছিলি নাকি অন্ধ?
এইবার হীরাঝিল নামে এলো মিল!”

গাছে-গাছে চুনকাম, হেসে ওঠে হীরাঝিল!

দেখো, দেখো, পাশে নদী ভাগীরথী,
           বলি হে,
    এই জলে নবাবের প্রসাদটা
             কবে গেছে তলিয়ে,
সেই জলে রোদ পড়ে নেচে ওঠে হীরাঝিল,
নবাবের খুশি যেন হেসে ওঠে খিল-খিল!

ডাঙ্গায় যেটুকু আছে — সেটুকুও ধ্বংস,
দেওয়ালের ইট বা ভিতের-ই তো অংশ,
সব কিছু ঝাড়পোছ করা হতে সাচ্চা,
রোদ এসে চকচকে করে দিলো আচ্ছা,

চুন দেওয়া গাছগুলো তার সাথে দেয় মিল,
এসব না দেখলে — কী দেখবে হীরাঝিল?

নবাব প্রাসাদ ছাড়ার কত বছরের পর,
দুই শত তেষট্টি-চৌষট্টি বৎসর,
তারপর হীরাঝিলে হলো সাজানো,
গাছে-গাছে চুন রং হলো লাগানো —
যখন প্রাসাদটার নেই কিছু ঠিক,

হে দুর্ভাগা দেশ, তোর কি সবই বিপরীত?

সেই দেশ হতভাগা,
    যে-দেশে কমে যায় ইতিহাস চর্চা,
সেই দেশ পিছিয়ে —
    যে-দেশে জনগণ না-ভেবেই
        করে শুধু খরচা,
রাজা বা রানীর সততাতে
         পড়ে গেছে মরচা,

আজ কত পিকনিক, বন্ধুত্ব,
কেউ বা জানায় তার আড়ালের দুঃখ,
দেহের ভিতরে মন —
   কী এমন জিনিস তা,
     একটি সাথী না পেলে
                  হয় না সে সুস্থ?

হে পৃথিবী, তুমি কি যে
               বিস্ময়, নির্জন !
    মাটি থেকে আসা প্রাণ
      মাটিতেই মিশে যায়,
একটি ছোট্ট ঘুমে সবার চিরবিদায়,
তার মাঝে মন নিয়ে
         কত খেলা অকারন,
     

এই হীরাঝিলে বসে
       গায়ে লাগিয়ে বাতাস,
কাউকে বলবে কেউ হীরাঝিল-ইতিহাস,
নবাবের থেকে শুরু হবে সেই বিন্যাস,

গল্পটা এইভাবে হতে থাকে শেষ,
কাদের আন্দোলনে হীরাঝিলে হয়েছিল
          নবজাগরণ-উন্মেষ,
তাই গাছে-গাছে হলো চুনকাম,
নোংরা ভয়ঙ্কর বন হলো ছিমছাম,
রোদ করে পায়চারি, চারিপাশ সাচ্চা,
এ না-হলে হীরাঝিল, আচ্ছা, হ্যা আচ্ছা,

পাখাপাখি মশগুল, কেউ মারবে না ঢিল,
গাছে-গাছে চুনকাম, হেসে ওঠে হীরাঝিল!
         রোদ হাসে খিল-খিল!

আধুনিক রূপে হীরাঝিল সাজতেই —
    চলে যায় রাত্রির স্থিরতা গভীর,
বিজলি বাতির সারি একে -একে
                   দাঁড়িয়েই স্থির,
কেউ করে আফসোসে —
                যে-স্মৃতিচারণ :–
  নেই সে-ভয়ঙ্কর ঝোপঝাড় বন,
  অমাবশ্যয় হতো আতঙ্ক তখন,
  জোৎস্নায় করতো যে গা ছমছম,
বিজলির বাতি সাজাতেই সারি-সারি,
রাত্রির মজাটাই চলে গেছে ভারী!

দীর্ঘশ্বাস ফেলে বলে আর একজন,
এটাই তো হীরাঝিলে নবজাগরণ!

তারপর পুনরায় দীর্ঘশ্বাস —
হীরাঝিলে সেই রাত — সে তো ইতিহাস!

   ———————————————–

||নবাব সিরাজ কবিতা সিরিজ : কবিতা নং -34|
   ———————————————–
   ( 4-5 জানুয়ারি 2022, Ridendick Mitro, Kolkata, India )

******************************************

? ||এই সিরিজের নানা কবিতা এপর্যন্ত যে সব মুদ্রিত মাধ্যম ও ইন্টারনেট পত্রিকায় বেরিয়েছে ও বেরুচ্ছে সেগুলি হলো : —
রূপুর পত্রছন্দ কবিতা সংকলন –প্রথম খন্ড :– সম্পাদিকা –নার্গিস খাতুন, বারুইপুর, কলকাতা, প্রকাশ 15th অগাস্ট 2021
kabyapot.com,  www.globalnewz.online,

অনেক সময় অনেক wabesite পত্রিকা  satellite এর সমস্যায় লিংক আসতে বাধা পায় সাময়িক ভাবে বা অন্য কোনো সমস্যা হলে সেই পত্রিকার  সম্পাদককে ফোন করে সমস্যার কারন জেনে নিতে পারেন!
আরো অন্য কোনো পত্রিকায় বা সংকলনে এই সিরিজ বেরুলে জানানো হবে, সাংবাদিক, গবেষকদের উদ্দেশ্যে জানানো হলো, তবে এঁরা খুব আগ্রহী হয়ে এগুলি বের করছেন, অন্য লেখাগুলিও করেন, কিন্ত এই সিরিজের কথাই এখানে মূলত আলোচ্য! বহু পত্রিকায় এই সিরিজ ছড়িয়ে দিলে গবেষক, সাংবাদিকদের খুঁজতে অসুবিধে হবে তাই যথাসম্ভব কম সংখক পত্রিকায় এই সিরিজ বের করা হচ্ছে || ?


       ———————————————–বিঃদ্রঃ — ঋদেনদিক মিত্রো (Ridendick Mitro ),  কলকাতা, ভারত, পেশায় ইংরেজি ও বাংলা ভাষায় কবি-ঔপন্যাসিক-কলামনিস্ট-গীতিকার,  পৃথক ভাবে দুটি ভাষায়, অনুবাদ নয়,  একটি বিশ্বজাতীয় সঙ্গীত ” World anthem — We are the citizen of the Earth “,  ” Corona Anthem 2020 official Bengali Song “( আগ্রাসনের নেশার সাথে হিংসা সীমা ছাড়া ), Sristi Brand Song,  কাব্যপট পত্রিকা অন্থেম,  মুক্ত বলাকা অন্থেম,  ” নবাব সিরাজউদ্দৌলা মুক্ত বিদ্যালয় খোসবাগ / আমাদের তুমি গর্ব বাংলার শেষ স্বাধীন নবাব…  ”  (Link : নবাব সিরাজউদ্দৌলার হীরাঝিল প্রাসাদে কে এই লুৎফুন্নিসা — “Manas Bangla”  Youtube  ) প্রভৃতি বিশেষ ধরণের সংগীতের রচয়িতা,  নবাব সিরাজউদ্দৌলার ওপর সংগীতটি আজকের লুৎফুন্নিসা সমর্পিতার  (সমর্পিতার বিষয় জানতে :link : লুৎফুন্নিসার কি পুনর্জন্ম হয়েছিল / Was Lutfunnisa Reborn – Manas Bangla ইউটুব ) সুরারোপ এবং নবাবের কবরে ও তাঁর নামিত সব বয়সের বহু রকমের বিদ্যা শেখার আন্তর্জাতিক মানের স্কুল ” নবাব সিরাজউদ্দৌলা মুক্ত বিদ্যালয় খোসবাগ ” -এ প্রার্থনা সঙ্গীত হিসেবে গীত হয়,  এবং একই সাথে নবাবের প্রাসাদ ছিল যেই স্থানে সেই হীরাঝিলে সৃষ্টি দেশ বিশ্বব্যাপী  “হীরাঝিল বাঁচাও ” (এই নামে Facebook দেখুন ) আন্দোলনে ( link : ভাগীরথীর ভাঙনে তলিয়ে যেতে বসেছে নবাব সিরাজউদ্দৌলার হীরাঝিল প্রাসাদ – Manas বাংলা, এই ইউটুবেও  আন্দোলনের  সংবাদের শেষে সমর্পিতা তাঁর স্কুলের knight মানে ছাত্রছাত্রী ও আরো অন্যজনদের নিয়ে ওই প্রার্থনা সংগীতের মাঝখান থেকে সিকোয়েন্স অনুযায়ী গেয়ে এই অভিযানের প্রথম কাজ শেষ করলেন, এটা দেখা যায় ) কবি হিসেবেও নির্বাচিত!  ২০২০ পর্যন্ত বিভিন্ন প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত গ্রন্থ ২০-২১টি, বিভিন্ন গ্রন্থ বিখ্যাত বিদেশী  অতিথির দ্বারা উদ্বোধন করা হয়েছে, বিভিন্ন সংস্থা থেকে বিভিন্ন পুরষ্কার ও সম্মাননায় সম্মানিত৷  
একটি বিশেষ কথা হলো, ? কবির থেকে জানা গেলো, নবাব সিরাজ কেন্দ্রিক প্রায় 100 (একশত ) মত ইংরেজি ও বাংলাতে কবিতা, সঙ্গীত ও ছড়া লেখা সম্ভব হয়েছে সেটা Manas Bangla — ইউটুব এ আজকের লুৎফুন্নিসা সমর্পিতা দত্তের সাথে নানা ইন্টারভিউ দেখে সিরাজ বিষয়ে আপ্লুত হয়ে, তারপর নবাব কেন্দ্রিক নানা চর্চায় কবি গবেষণার মন নিয়ে প্রবেশ করেন ও আরো কাজ করেন! কিন্তু এই কেন্দ্রিক ভাবনার প্রথম উৎসাহ ও উৎস ওই ইউটুব চ্যানেল, ঘটনাক্রমে 2021 সাল এর মাঝামাঝি সময় থেকে! 
করোনার আতঙ্কে বিভিন্ন প্রকাশনী থেকে নতুন গ্রন্থ প্রকাশে আটকে আছে, আটকে আছে নানা নতুন সংগীতের রেকর্ডিং৷                    —  Editor                                  —————-

Spread the Kabyapot

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আপনার প্রদেয় বিজ্ঞাপনের অর্থে মুদ্রিত কাব্যপট পত্রিকা প্রকাশে সাহায্য করুন [email protected]