• Sun. Feb 5th, 2023

ঈদের চাঁদ – সৈয়দ খুকুরানী

ByKabyapot

May 3, 2022

ঈদের চাঁদ 🌙
সৈয়দ খুকুরানী
দাদোজান,
আমি বেগম পুকুরের পাড়ে ,
ঠিক খেজুর গাছ টার নীচে দাঁড়িয়ে রয়েছি।
দাদোজান,
দাঁড়িয়ে রয়েছি ,আর চেয়ে চেয়ে দেখছি ,
পশ্চিমের আকাশে সরু কাস্তের মতো ঈদের চাঁদ 🌙।

দাদোজান,
আমি আখেরি জমানায়
এক ভারসাম্য হীন তারাজুতে দুলছি।
আমি ডাইনে, বাঁয়ে , যেদিকে তাকাই ,
শুধুই দোটানায় দোলে পেনডুলাম।
চারিদিকে কেন যে শুধু চিৎকার।
মানুষ আর আগের মতো ভালো নেই।
আগের সে খুশি হারিয়ে গেছে দাদোজান।

দাদোজান,
কতদিন আমাদের মাটির হাজার দুয়ারী বাড়ীর কোঠা থেকে ,
তোমার জানুতে বসে
শাহাদাত আঙ্গুল উঁচিয়ে দেখিয়েছি ঈদের সরু কাস্তের মতো চাঁদ 🌙
জানিয়েছি সালাম।
এখন ঈদের চাঁদ আর তেমন স্বাতন্তরে উজ্জ্বল নয়।

দাদোজান,
ছেলেবেলার সেই শিশুসুলভ অঙগতা আর সারল্য নিয়ে আসমানের দিকে তাকিয়ে তাকিয়ে ভেবেছি ,
বেগম পুকুরের খেজুর গাছ টা ,
যদি আকাশের সব নীল মুছে এনে
মানুষের মনটা এমন সুন্দর করে দিতো।
মানুষের মনের সব দুঃখ ভুলিয়ে ,
খুশী এনে দিতো।

দাদোজান ,
আমি এখন কোন হিজরী তে বেঁচে আছি ?
তোমার আকাশে চাঁদ ছিল সেদিন,
আমার ঈদের আকাশ , মেঘে ভরা।
চাঁদ ঢেকে দেয় মেঘ।
তোমার বাটিতে খুরমা খেজুর ছিল ভরা।
আমার বাড়ির পাশের খেজুর গাছ টা নু্ব্জ্যন্যাড়া।আজ আকাশ আছে , গাছ আছে , আমাদের সারল্য কই?
তেমন,ই ঈদ আসে বারবার।
বিভেদের কোলাকুলি , সম্পর্কে ফাটল, অন্তর ছারখার।

দাদোজান,
এতো রোদ , গরম , হয়রান হয় রোজাদাররা,
তারাবির ইমামতি তে শরীর বুঝি , বেহুঁশ হয়।
ঈদের চাঁদ কেনো সরমিনদায় মুখ ঢাকে ?
আর একসাথে বসে , কেউ মেহেন্দি পরে না, ঈদগাঁও লাল , নীল , সবুজ কাগজে রঙ্গীন হয়না।
ছোট বেলার সে কৌতুহলী চোখ , মাথার উপর সুতলী দড়ির রঙ্গীন কাগজ উড়তে দেখেনা।

দাদোজান,
এখন আর তেমন করে ঈদ গাঁ মাতোয়ারা হয় না আতরের সুগন্ধ, সেই খুশীর ব্যাস্ততা হৈ, হট্টগোল এসব গেছে আজ হারিয়ে।
আলিঙ্গনের দূরত্ব মানুষ কে আজ ঘিরে রেখেছে।

দাদোজান,
আমি এখন ,আসমান জমিন এ যেদিকে তাকাই শুধুই বারুদের গন্ধ।
যুদ্ধ, লড়াই, মন কষাকষি
কোথাও, কেউ আর মন খুলে আনন্দ বিলায় না। হৃদয়ের বন্ধন গম্ভীর, স্তব্ধ করেছে মানুষ’কে।
তেমন করে আর গাঁয়ে গঞ্জের কেউ বলেনা ,
তিরিশ রমজান শেষে এলো , খুশীর ঈদ
দোস্ত , দুশমন ভুলে সবাই
আয়রে আজ মসজিদ।
আজ উৎসব হয়, পাল পরব হয়,
ঈদের চাঁদ , তেমন উজ্জ্বল নয়।।

***********

কবি সৈয়দ খুকুরানী


Spread the Kabyapot